যৌন হয়রানির মামলা রুডি জুলিয়ানির বিরুদ্ধে


প্রকাশিত: ১৬ মে ২০২৩, ০৪:০৫
...
নিউইয়র্কের সাবেক মেয়র রুডি জুলিয়ানির বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনে মামলা করছেন তার সাবেক এক সহযোগী। অভিযোগে যৌনরানি ছাড়াও কর্মক্ষেত্র হেনস্তা, বেতন থেকে চুরি ও অন্যান্য অনাচারের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। বলা হয়েছে, সাবেক মেয়র তার এই সহযোগীকে শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব দিয়েছিলেন আর মদ্যপ হয়ে তার সঙ্গে যৌনতা করেছেন, বর্ণবাদী আচরণ করেছেন এবং ধর্মীয় বিশ্বাস নিয়ে কটাক্ষপূর্ণ মন্তব্য করেছেন। অভিযোগকারীর দাবি এবং অভিযোগের বিপরীতে তার কাছে যথেষ্ট রেকর্ড রয়েছে।

অভিযোগকারীর নাম নোয়েল ডানফি। তিনি তার মামলার নথিতে উল্লেখ করেছেন তিনি ২০১৯ সালে জুলিয়ানির সঙ্গে তার বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ডাইরেক্টর হিসেবে কাজে যোগ দেন। এবং তখন থেকেই জুলিয়ানি তার সঙ্গে নানা ধরনের হয়রানিমূলক আচরণ শুরু করেন।

শুরু থেকে জুলিয়ানি রাখঢাক ছাড়াই তার যৌন চাহিদা পূরণের জন্য নোয়েল ডানফিকে বলতে শুরু করেন, এবং ভার্চুয়াল মাধ্যমে যখন তখন এমন প্রস্তাব পাঠাতেন, আর সেটা যেনো তার কাজেরই শর্ত ছিলো।

ডানফির অভিযোগ, গিলিয়ানি তাকে ১ মিলিয়ন ডলার বেতনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তবে এই শর্তে জুলিয়ানির তখন বিবাহ বিচ্ছেদের প্রক্রিয়া চলছিলো এবং সে প্রক্রিয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত ডানফির চাকরির বিষয়টি গোপন থাকবে এবং বেতন বন্ধ থাকবে।

মামলার নথিতে উল্লেখ করা হয়েছে, জুলিয়ানি তাকে বলেছেন তার 'ক্রেজি' স্ত্রী ও তার আইনজীবিরা তার আয়-ব্যয়ের ওপর নজর রাখছেন এবং সাবেক স্ত্রী তার বর্তমান নারী সহকর্মীদের সন্দেহের চোখে দেখছেন।

ডানফি জানান, তার কাছে জুলিয়ানির এমন টেক্সট ম্যাসেজ রয়েছে যাতে তিনি বলেছন, "আমি তোমাকে যখন ইন্টারভিউ করি তখন থেকেই তোমাকে আমার পেতে ইচ্ছা হয়।"

চাকরি দেওয়ার কথা বলে গিলিয়ানি চার্টার্ড প্লেনে করে ডানফিকে নিউইয়র্ক নিয়ে আসেন এবং চাকরি হওয়া আগেই তাকে তার আপার ইস্ট সাইডের একটি অ্যাপার্টমেন্টে থাকার অফার করেন। সেখানে দুই জন মদ্যপ হয়ে পড়লে গিলিয়ানি কোনো ধরনের জিজ্ঞাসা না করেই ডানফির মাথা তার নিম্নাঙ্গের দিকে চেপে ধরেন। চুলের ঝুটি চেপে ধরে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ওরাল সেক্সে বাধ্য করেন, উল্লেখ করা হয়েছে মামলার নথিতে।

এছাড়াও জুলিয়ানি কাজ করার সময় যখন তখন ডানফিকে নগ্ন হয়ে হতে বলতেন। আর আমেরিকার পতাকার কাপড়ে তৈরি বিকিনি ও শর্টস পরে থাকতে বাধ্য করতেন। ওই বিকিনি ও শর্টস জুলিয়ানিই তাকে কিনে দিয়েছিলেন।

যখন দুজন আলাদা থাকতেন তখন ভিডিও কনফারেন্সে কাজ করতেন আর সেসব কনফারেন্সের সময় প্রায় সব সময়ই জুলিয়ানি ডানফিকে নগ্ন হতে বলেতন। ভিডিও কলগুলোও তিনি প্রায়শঃই করতেন বিছানায় শুয়ে।

সর্বশেষ