‘বাংলাদেশ ডে প্যারেড’ এর প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত


প্রকাশিত: ৬ মে ২০২৪, ১৯:০৫
...
‘বাংলাদেশ ডে প্যারেড’ এর প্রস্তুতি সভা গত ২৯ এপ্রিল সন্ধ্যা ৭ টায় জ্যাকসন হাইটস এর ‘স্মার্ট টেক’ এর প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইটস ডেভেলপমেন্ট ইউএসএ’র সভাপতি এবং বাংলাদেশ ডে প্যারেড-এর চেয়ারপারসন শাহ শহিদুল হক সাঈদ।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বাংলাদেশ ডে প্যারেডের আহ্বায়ক শাহ নেওয়াজ, প্রধান উপদেষ্টা গিয়াস আহমেদ, উপদেষ্টা পরিষদ এর লিগ্যাল এডভাইজার এটর্নি মঈন চৌধুরী, অন্যতম এডভাইজার নুরুল আজীম, জেবিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক তারিক হাসান খান, বাংলাদেশ ডে প্যারেডের প্রধান সমন্বয়কারী যায়েদ সোলাইমান, সদস্য সচিব তরিকুল ইসলাম বাদল, ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইটস ডেভেলপমেন্ট ইউএসএ’র সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবহান সহ কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দীর্ঘ সময় চলা এ সভায় বাংলাদেশ ডে প্যারেড এর উত্তাল তরঙ্গ বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে সবাই বদ্ধ পরিকর হয়। সভায় বলা হয়, বাংলাদেশের ইতিহাস ঐতিহ্য সংস্কৃতির লাল সবুজ আবেশ আমেরিকার বুকে ছড়িয়ে দেবার প্রত্যয়ে আগামী ২৬ মে রোববার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত নিউইয়র্ক-এর লিটল বাংলাদেশ খ্যাত জ্যাকসন হাইটস এর ৬৯-৮৭ স্ট্রিটের ৩৭ এভিনিউতে আয়োজন করা হচ্ছে ‘বাংলাদেশ ডে প্যারেড’। এই আয়োজনে থাকবে বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তের সংস্কৃতি উপস্থাপন, যেমন খুশি তেমন সাজো, পুলিশ প্যারেড, সহস্র কণ্ঠে দেশের গান, বাংলাদেশ এবং আমেরিকার উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা বৃন্দ সহ খ্যাতনামা ব্যক্তিদের পদচারণা। বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রীকে বিশেষভাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

নিউইয়র্ক সিটি মেয়র এরিক এডামস এই প্যারেডের ভিআইপি মার্শাল হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বলে আহবায়ক শাহ নেওয়াজ নিশ্চিত করেছেন। এছাড়াও স্থানীয় কংগ্রেসম্যান, ওম্যানদেরও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এই প্যারেড নিয়ে রাষ্ট্রদূত, কনসাল জেনারেল-এর সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করা হচ্ছে। অরাজনৈতিক এবং অবিস্মরণীয় আয়োজন হিসেবে ইতমধ্যেই স্থানীয় কমিউনিটিতে বেশ সাড়া ফেলতে সক্ষম হয়েছে ‘বাংলাদেশ ডে প্যারেড’। তারা আমাদের এই ঐতিহাসিক প্যারেড কে স্বাগত জানিয়ে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে।

বাংলাদেশ এবং আমেরিকার জাতীয় সঙ্গীত এর মাধ্যমে প্যারেডের সূচনা হবে। প্যারেডটি ৬৯ স্ট্রীট থেকে শুরু হওয়া এই প্যারেড শেষ হবে ৮৭ স্ট্রীটে। প্যারেড চলাকালীন দুপাশের রাস্তায় থাকবে বাংলাদেশ এবং আমেরিকার পতাকা সহ আমাদের দেশের সংস্কৃতির নানান ছোঁয়া। যা আমাদের নতুন প্রজন্ম এবং আমেরিকার জনগনের কাছে শিক্ষনীয় হয়ে থাকবে। এ আয়োজনে দল মত নির্বিশেষে একক কিংবা দলীয় ভাবে অংশ গ্রহনের ব্যবস্থা রয়েছে। যারা আগে নাম তালিকাভুক্তি করবেন তাদের নাম আগে ডাকা হবে এবং আগে সিরিয়াল পাবেন। প্রতিটি সংগঠনের জন্য ২০০ ডলার এবং একক অংশ গ্রহনের জন্য ৫০ ডলার রেজিস্ট্রেশন ফি ধার্য করা হয়েছে। -প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

সর্বশেষ

সর্বশেষ