কাগজে–কলমে এখন আরও ৩০০ কোটি ডলারের মালিক ট্রাম্প

বাংলা পত্রিকা ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৪ মার্চ ২০২৪, ১৭:০৩
...
শেয়ারবাজারে আসছে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মালিকানাধীন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ট্রুথ সোশ্যাল। বিনিয়োগকারীরা এই পরিকল্পনায় সায় দিয়েছেন, ফলে এখন কাগজে-কলমে ট্রাম্পের শেয়ারের দাম দাঁড়িয়েছে ৩ বিলিয়ন বা ৩০০ কোটি ডলারে।

গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, ট্রুথ সোশ্যালের মূল কোম্পানি ট্রাম্প মিডিয়া অ্যান্ড টেকনোলজি শেয়ারবাজারে আসতে এক শেল কোম্পানির সঙ্গে একীভূত হতে রীতিমতো সর্বস্ব দেওয়ার মানসিকতা নিয়ে মাঠে নেমেছিল। শেষ পর্যন্ত শুক্রবার সকালে তারা এই কাজে সফল হয়েছে। ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড অ্যাকুইজিশনের সঙ্গে একীভূত হয়েছে ট্রাম্পের কোম্পানি।

২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরাজয় এবং গুজব ও উসকানিমূলক বক্তব্য প্রচারের দায়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটার (বর্তমান এক্স) ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেয়। কিন্তু যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ওপর ভর করে ট্রাম্পের উত্থান, মাধ্যম থেকে দূরে থাকতে পারেননি তিনি। সে জন্য তিনি নিজেই একটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম খুলে বসেন, যার নাম দেন ট্রুথ সোশ্যাল।

২০২১ সালে বাজারে আসার পর থেকে ট্রুথ সোশ্যাল তেমন একটা সুবিধা করতে পারছিল না। এই সময়ে তাদের বিক্রয়লব্ধ আয় ছিল ৫ মিলিয়ন বা ৫০ লাখ ডলার। ফেব্রুয়ারি মাসে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড অ্যাকুইজিশন করপোরেশনের সঙ্গে একীভূত হওয়ার অনুমোদন পায় ট্রুথ সোশ্যাল। এর পর থেকে কোম্পানির বাজারমূল্য বাড়তে থাকে। বছরের শুরু থেকেই ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের শেয়ারের দাম বাড়ছে। চলতি বছর এখন পর্যন্ত ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের শেয়ারের দাম বেড়েছে ১৪৫ শতাংশ, ফলে কোম্পানিটির বাজার মূল্য ৬০০ কোটি ডলারে উঠেছে।

ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের শেয়ার এখনো বিনিয়োগকারীদের কাছে আস্থাভাজন হতে পারেনি। শুক্রবার কোম্পানির পর্ষদে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তি নিয়ে ভোটাভুটির পর কোম্পানিটির শেয়ারদর প্রায় ১৪ শতাংশ কমে গেছে। ফলে ভবিষ্যতে ট্রাম্প ঠিক কত দরে নিজের শেয়ার বিক্রি করতে পারবেন, তা নিয়ে অনিশ্চয়তা থেকেই যায়।
নতুন কোম্পানিটি ডিজেটি নামে শেয়ারবাজারে নিবন্ধিত হয়েছে। আগামী সপ্তাহ থেকে লেনদেন শুরু করতে পারবে কোম্পানিটি।

একীভূত এই কোম্পানিতে ট্রাম্পের শেয়ারের পরিমাণ ৫৮ দশমিক ১ শতাংশ। বর্তমানে এর প্রতিটি শেয়ারের দাম ৪০ ডলার। এই হিসাবে ট্রাম্পের কাছে থাকা শেয়ারের মোট দাম ৩০০ কোটি ডলারের বেশি।

এই ঘটনা ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য সুখবর। তবে আপাতত স্বস্তি পাচ্ছেন না তিনি; কারণ, এই শেয়ার এখনই বিক্রি করা যাবে না। গত ফেব্রুয়ারিতে নিউইয়র্কের আদালত ট্রাম্পকে ৪৬ কোটি ৬০ লাখ ডলার জরিমানা করেছিলেন, সেই জরিমানা পরিশোধেও এই অর্থ ব্যবহার করতে পারবেন না তিনি। অথচ এই অর্থ পরিশোধের শেষ সময় কাল সোমবার। কিন্তু কোনো নিশ্চয়তা প্রদানকারী কোম্পানি এই অর্থ পরিশোধের বিষয়ে ট্রাম্পকে সহায়তা করতে রাজি হয়নি। এখন পর্যন্ত ৩০টি কোম্পানি তাঁর প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে।

২০২১ সালের ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ট্রাম্পের ট্রুথ সোশ্যাল কোম্পানির সঙ্গে একীভূত হওয়ার লক্ষ্যে চুক্তি করার পর দেশটির সিকিউরিটিস অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়। তারা কোম্পানির প্রধান নির্বাহীকে সরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি পরিচালনা পর্ষদ ভেঙে দেয়। এ ছাড়া ভুল তথ্য প্রকাশের দায়ে তাদের ১ কোটি ৮০ লাখ ডলার জরিমানাও হয়।

সর্বশেষ