ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম লাল কার্ডের শিকার নারিন

বাংলা পত্রিকা ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮ আগস্ট ২০২৩, ১৮:০৮
...
খেলোয়াড়দের শাস্তি প্রয়োগে কার্ডের ব্যবহারের কথা উঠলে চলে আসে ফুটবলের প্রসঙ্গ। কেননা ৯০ মিনিটের খেলা বাদে আগে কখনো কোনো স্পোর্ট ইভেন্টে হলুদ কিংবা লাল রঙের কার্ডের ব্যবহার হয়নি। এবার কার্ড দেখিয়ে শাস্তি প্রদানের প্রথা শুরু হলো ক্রিকেটেও। রোববার ক্যারিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (সিপিএল) ম্যাচে ইতিহাসের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে লাল কার্ডের শিকার হলেন ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের সুনিল নারিন।

রোববার সেন্ট কিটসের ওয়ার্নার পার্কে সিপিএলের ম্যাচে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়সের মুখোমুখি হয় ট্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের ইনিংসের শেষ ওভারে স্লো ওভার রেটের কারণে ট্রিনবাগোকে শাস্তি হিসেবে লাল কার্ড দেখান আম্পায়ার। এতে পূর্বনির্ধারিত নিয়ম অনুসারে কার্ড দেখানোর পর একজন কম খেলোয়াড় নিয়ে ফিল্ডিং করতে হতো ট্রিনবাগোর। আর তখন আগেই চার ওভার বোলিং করে ফেলা সুনিল নারিনকে বাইরে পাঠায় দলটি।

প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ২০০৫ সালে গ্লেন ম্যাকগ্রা মজা করে আন্ডার আর্ম বল করার পর এই অস্ট্রেলিয়ান পেসারকে লাল কার্ড দেখিয়েছিলেন আম্পায়ার বিলি বাউডেন। সেসব ছিল মজার ছলে। কিন্তু সত্যিকারের শাস্তি হিসেবে কারো মাঠের বাইরে চলে যাওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম।কয়েক বছর ধরে স্লো ওভার রেটের প্রবণতা বেড়েছে ক্রিকেটে। তাই এবার বেশ কিছু কড়া নিয়ম করে সিপিএল কর্তৃপক্ষ।

লাল কার্ড তারই অংশ। টি- টোয়েন্টি ক্রিকেটে একটি ইনিংসের জন্য বরাদ্দ থাকে ৮৫ মিনিট। সিপিএলে এবার নিয়ম করা হয়, ইনিংসের ১৭তম ওভার শেষ করতে হবে ৭২ মিনিটের মধ্যে। ১৮তম ওভার শেষ করতে হবে ৭৬ মিনিট ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে এবং ১৯তম ওভার শেষ করতে হবে ৮০ মিনিট ৪৫ সেকেন্ডের মধ্যে। শেষের এই তিন ওভার সময়মতো শুরু করতে না পারলে বিভিন্ন শাস্তি নির্ধারণ করেছে সিপিএল কর্তৃপক্ষ। ১৮তম ওভার শুরু করতে সময় বেশি লাগলে একজন বাড়তি ফিল্ডার ৩০ গজ বৃত্তের ভেতরে রাখতে হবে। ১৯তম ওভার শুরু করতে সময় বেশি লাগলে দুজন বাড়তি ফিল্ডার (মোট ৬ জন) রাখতে হবে বৃত্তের ভেতরে। শেষ ওভার শুরুতেও দেরি করলে তাহলে একজন ফিল্ডারকে মাঠের বাইরে চলে যেতে হবে। সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের বিপক্ষে সবগুলো শাস্তিই পেয়েছে ট্রিনবাগো নাইট রাইডার্স।

কড়া শাস্তি পেলেও শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি জিতে নেয় ট্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৫ উইকেটে ১৭৮ রান তোলে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস। জবাবে ১৭ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটের জয় পায় ট্রিনবাগো। ৩২ বলে ৫ চার ও ৪ ছক্কায় ৬১ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা হন ট্রিনবাগোর ক্যারিবিয়ান ব্যাটার নিকোলাস পুরান।

ম্যাচ জিতলেও সিপিএলের লাল কার্ড দেখানোর নিয়মের সমালোচনা করেছেন ট্রিনবাগো নাইট রাইডার্স অধিনায়ক কাইরন পোলার্ড। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, ‘সত্যি বলতে কি, সবাই যে কঠোর পরিশ্রম করে, এতে (লাল কার্ডের শাস্তিতে) তার কোনো অর্থ থাকে না। আমরা দাবার ঘুঁটির মতো, আমাদের যা বলা হবে, তাই করব। আমরা যতটা দ্রুত পারি খেলব। তবে আপনাকে যদি এমন টুর্নামেন্টে ৩০ থেকে ৪৫ সেকেন্ডের জন্য শাস্তি দেয়া হয়, তাহলে সেটি হাস্যকর হয়ে যায়।’

সর্বশেষ

সর্বশেষ