ডায়ানার মৃত্যুর বহু বছর পরেও হ্যারি বিশ্বাস করতেন তার মা বেঁচে আছেন


প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৯:০১
...
প্রিন্স হ্যারি প্রথমদিকে বিশ্বাসই করতে পারতেন না যে, তার মা প্রিন্সেস ডায়ানা মারা গেছেন। ১৯৯৭ সালের আগস্ট মাসে এক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান প্রিন্সেস অফ ওয়েলস প্রিন্সেস ডায়ানা। কিন্তু যখন তার দুই সন্তান হ্যারি ও উইলিয়ামের কাছে এই সংবাদ পৌঁছায় তখন তারা কেউ এ খবর বিশ্বাস করেন নি। সমপ্রতি প্রকাশিত আত্মজীবনী স্পেয়ার বইতে প্রিন্স হ্যারি এসব কথা জানিয়েছেন। এতে তিনি লেখেন, তার দৃঢ় বিশ্বাস ছিল যে, তার মা ডায়ানা নিজের মৃত্যুর অভিনয় করছেন, কিন্তু আসলে সে মারা যাননি। সমপ্রতি সিবিএস-এর ‘৬০ মিনিট’ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েও হ্যারি বলেন, আমি কোনোভাবেই আমার মায়ের মৃত্যু মেনে নিতে পারছিলাম না। ডায়ানার মৃত্যুর অনেক পরেও হ্যারির বিশ্বাস ছিল যে, তার মা সাময়িক সময়ের জন্য অদৃশ্য হয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। হয়তো এটা তার বিশাল পরিকল্পনার অংশ ছিল। হ্যারি লিখেছেন, তার মায়ের ফিরে আসার বিষয়ে তিনি অত্যন্ত আশাবাদী ছিলেন। তার ভাই উইলিয়াম যাকে বৃটেনের পরবর্তী রাজা মনে করা হয়, তারও একই রকম বিশ্বাস ছিল বলে জানান হ্যারি।

প্রিন্স হ্যারি লিখেছেন, তার মা কোনো একদিন ফিরে আসবেন- এই ধারণা তার মনে গেঁথে ছিল। প্রায়ই ঘুম থেকে উঠে তার মনে হতো যে, আজকেই সেই দিন যেদিন তার মা ফিরে আসবেন। হ্যারি তার বইতে লিখেছেন, যেদিন ডায়ানার মৃত্যু হয় সেদিন তিনি ও তার ভাই গ্রীষ্মের ছুটিতে বালমোরাল প্রাসাদে ছিলেন। তার পিতা রাজা চার্লসই তাদেরকে ঘুম থেকে ডেকে মায়ের মৃত্যুর খবর দেন। তবে সান্ত্বনা হিসেবে তার পিতা সে সময় তাদেরকে জড়িয়েও ধরেননি। হ্যারি জানান, মায়ের মৃত্যুর পর ১৭ বছরে তিনি মাত্র একবার কেঁদেছিলেন। প্রিন্স হ্যারির আত্মজীবনীর বড় অংশজুড়েই রয়েছে ডায়ানার অনুপস্থিতির বিষয়টি। তবে যখন তিনি প্রথম মায়ের মৃত্যুর খবর পান তখন তিনি কাঁদেননি। শুধুমাত্র শেষকৃত্যের দিন তার চোখ দিয়ে পানি পড়ে। কিন্তু এরপর ১৭ বছরে আর কাঁদেননি তিনি।

২০১৪ সালে তার তৎকালীন প্রেমিকা ক্রেসিদা বোনাস যখন হ্যারির কাছে তার মায়ের ব্যাপারে জানতে চান, তখন তিনি কেঁদে ফেলেন। হ্যারি লিখেন, তিনি আগে কান্না করতে পারতেন না। তবে মেগান মার্কেলের সঙ্গে তার সম্পর্ক শুরুর পর তিনি থেরাপি নিতে শুরু করলে এই অবস্থার পরিবর্তন হয়। কান্না না করলেও মায়ের মৃত্যুর শোক হ্যারিকে যন্ত্রণা দিতো বলেও ওই বইতে উল্লেখ করেছেন তিনি। শোক ভুলতে সবসময় নিজের সঙ্গে মায়ের ব্যবহৃত পারফিউমের বোতল রাখতেন হ্যারি। মৃত্যু শোক ভুলতে সান্ত্বনা হিসেবে কাজ করতো সেই পারফিউম। তিনি লিখেছেন, মায়ের স্মৃতি মনে পড়লেই পারফিউমের বোতল খুলে ঘ্রাণ নিতাম আমি। গোলাপ, জুঁই ও চন্দন ফুলের সুবাস পাওয়া যেত ওই পারফিউমে। প্রিন্সেস ডায়ানার সবচেয়ে প্রিয় সুগন্ধি ছিল এটি।

সর্বশেষ